সোমবার, ৩০ জানুয়ারী ২০২৩, ০১:১২ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
পলাশবাড়ী মাঠেরহাট বাজার আবু বক্কর ফাজিল ডিগ্রী মাদ্রাসা ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ গাইবান্ধায় পত্রিকা হকারদের মাঝে রিপোর্টার্স ইউনিটির “শীতবস্ত্র বিতরণ” পরিবেশ অধিদপ্তরের অভিযানের পরেও বন্ধ হয়নি ইটভাটা পোড়ানো হচ্ছে প্ল্যাস্টিকের জুতা  গোবিন্দগঞ্জে এপেক্স ক্লাবের উদ্যোগে এতিম মেয়ের বিবাহের জন্য নগদ আর্থিক সহায়তা প্রদান ফুলছড়িতে আগুনে ৬টি শয়ন ঘরসহ মালামাল পুড়ে ছাই ২টি পরিবারের গোবিন্দগঞ্জে রাখালবুরুজ ফকির পাড়া গ্রামে জমিজমা নিয়ে বিরোধের জেরে পুকুরে বিষ প্রয়োগে মাছ নিধনের অভিযোগ পলাশবাড়ীতে দুটি অবৈধ ইটভাটা ১১ লাখ টাকা জরিমানা ও বন্ধে মুচলেকা  সাদুল্লাপুরে জোনার ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে কুরআন শরীফ প্রদান। উৎসাহ, উদ্দীপনার মধ্যে গাইবান্ধায় বিদ্যার দেবী সরস্বতী পূজা উদযাপিত পলাশবাড়ীতে শেখ কামাল আন্তঃস্কুল ও মাদ্রাসা অ্যাথলেটিক্স অনুষ্ঠিত

ডাঃ মোজাফ্ফর আহমেদ আই কেয়ার সেন্টার,গাইবান্ধা । ০১৭৬৭-৩০৬৭০২

শিশু দিবস আসলে কোন দিন?

নিউজ ডেস্ক
  • প্রকাশের সময় : রবিবার, ২ অক্টোবর, ২০২২

শিশুদের নিয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে একটি দিন উদযাপনের জন্য শিশু দিবস পালন করা হয়। কিন্তু বিভিন্ন সংগঠন বছরের নানা দিনে শিশু দিবস পালন করায় এক ধরনের বিভ্রান্তি দেখা দেয়। এমনকি কোনও কোনও ক্ষেত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ঝড় ওঠে— আজ শিশু দিবস নাকি, আজকে কেন উদযাপন করা হচ্ছে। তাহলে শিশু দিবস আসলে কোন দিন? কোনটি জাতীয় শিশু দিবস, আর কোনটি আন্তর্জাতিক শিশু দিবস।

ইতিহাস বলছে, শিশু দিবসটি প্রথমবার ১৯২০ সালের ২৩ এপ্রিল তুরস্কে পালিত হয়েছিল। আন্তর্জাতিক শিশু তহবিল (ইউনিসেফ) ‘বিশ্ব শিশু দিবস’ ২০ নভেম্বরে উদযাপন করে থাকে। আবার আন্তর্জাতিক শিশু দিবস জুনের ১ তারিখে উদযাপন করা হয়। আবার অক্টোবরের শুরুতেও শিশু অধিকার সপ্তাহের মধ্যে একটা শিশু দিবস শোনা যায়। এমনকি বিভিন্ন দেশে নিজস্ব নির্দিষ্ট দিন আছে— শিশু দিবসটিকে উদযাপন করার।

জাতিসংঘ বা রাষ্ট্রসংঘ ১৯৫৪ সালের ২০ নভেম্বর দিনটিকে শিশু দিবস হিসেবে পালনের জন্যে ঘোষণা করেছিল। সেই ঘোষণা অনুযায়ী, ভারতেও ২০ নভেম্বরকে শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হতো। তবে ১৯৬৪ সালের ২৭ মে পণ্ডিত জওহরলাল নেহরুর প্রয়াণের পর শিশুদের প্রতি তার চরিত্রের এই বিশেষ দিকটিকে স্মরণে রেখে সর্বসম্মতভাবে তার জন্মদিনটি ভারতে শিশু দিবস হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তারপর থেকেই ভারতে প্রতিবছর ১৪ নভেম্বর দিনটি শিশু দিবস হিসেবে পালিত হয়ে আসছে।

বাংলাদেশে শিশুদের উৎসব হিসেবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিন ‘জাতীয় শিশু দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়। ১৯৯৪ সাল থেকে বঙ্গবন্ধু শিশু-কিশোর মেলা প্রথমবারের মতো বেসরকারিভাবে ১৭ মার্চ ‘জাতীয় শিশু দিবস’ হিসেবে পালন করে। প্রথম জাতীয় শিশু দিবস উদ্বোধন করেন বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ রেহানা। ১৯৯৬ সালে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মদিনটিকে সরকারিভাবে ‘জাতীয় শিশু দিবস’ হিসেবে পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ১৯৯৭ সাল থেকে সরকারিভাবে দিবসটি জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে পালন করা হয়।

দীর্ঘদিন শিশু অধিকার নিয়ে কাজ করেন গওহর নঈম ওয়ারা। শিশু দিবস আসলে কোনদিন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন ১৭ মার্চ বাংলাদেশে শিশু দিবস। বাকিগুলো জাতিসংঘের দিবস। বিষয়গুলো স্পষ্ট করে বললে বিভ্রান্তি হবে না।’ তিনি বলেন, ‘তবে এত শিশু দিবসের পরেও শিশু বিষয়ক এজেন্ডা স্পষ্ট হয় না। সেদিকে নজর দেওয়া উচিত। এত শিশু নৌকাডুবিতে মারা গেলো, তাদের প্রতি আলাদা সতর্ক দৃষ্টি না দেওয়া, তাদের অধিকারগুলো নিয়ে আলাপ না তোলার কারণে এসব ঘটে। এগুলো নির্ধারণ করা জরুরি।’

মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র তথ্য অফিসার মো. আলমগীর হোসেন একাধিক শিশু দিবসের বিষয়ে বলেন, ‘পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ বিভিন্ন দিন বিশ্ব শিশু দিবস পালন করে। কেবিনেটের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, বাংলাদেশ অক্টোবর মাসের প্রথম সোমবার বিশ্ব শিশু দিবস পালন করে।’

সূত্র- বাংলা ট্রিবিউন

Print Friendly, PDF & Email

যমুনা প্লাজা,গাইবান্ধা -01740569856

জিনিয়াস কিন্ডার গার্টেন এন্ড স্কুল ও জিনিয়াস এডুকেয়ার

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:২৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:১৪ অপরাহ্ণ
  • ১৬:০৩ অপরাহ্ণ
  • ১৭:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ১৯:০০ অপরাহ্ণ
  • ৬:৪১ পূর্বাহ্ণ
bdgaibandha.news©2020 All rights reserved
themesba-lates1749691102