শনিবার, ২২ জানুয়ারী ২০২২, ০৫:১৪ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
নলডাঙ্গা ইউপি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে ৬৮ জন প্রার্থী ক্যাপ্টেন পরিচয়ে অর্থ হাতিয়ে নেওয়ায় আব্দুর রাজ্জাক নামে ভূয়া ক্যাপ্টেন আটক সস্তা বিকল্প নেই, তাই বন্ধ করা যাচ্ছে না পলিথিন গাইবান্ধায় শিশু সুরক্ষা বিষয়ক এনসিটিএফ এর স্কুল কমিটি গঠন ও সদস্য সংগ্রহ কর্মসূচি সেই পিআইও’র মানহানির মামলায় যমুনা টিভির গাইবান্ধার সাংবাদিকসহ ৫ জনের জামিন গাইবান্ধায় এস,এ টিভির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিতঃ আলোচনা সভা ও কেক কাটা অনুষ্ঠিত সাদুল্লাপুরে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ১১ প্রার্থী বহিষ্কার গাইবান্ধা সদর থানায় যাওয়ার পথে কাকড়ায় চাপায় প্রান গেল বৃদ্ধের গাইবান্ধা নবাগত জেলা প্রশাসক অলিউর রহমান সাথে প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকগণের পরিচিতি সভা নিবন্ধন পেলেন  নিরাপদ যানবাহন চাই নিযাচা ফাউন্ডেশন।

হাঁসে হাসি; ডিম বিক্রির টাকায় সফল মৎস্য চাষি সাংবাদিক

পিয়ারুল ইসলাম, গাইবান্ধা
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১

রাজধানী ঢাকায় সাংবাদিকতার পাশাপাশি নিজ এলাকা গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরে এক বিশাল মৎস্য ও হাঁসের খামার গড়ে তাক লাগিয়েছেন সাংবাদিক ইমরুল কাওছার ইমন। তার এই খামারে বর্তমানে হাঁস রয়েছে হাজারের বেশি। হাঁস পালনের পাশাপাশি তিনি সমন্বিতভাবে ১২ বিঘা জমিতে (৪ একর) বাণিজ্যিকভাবে চাষ করছেন নানা জাতের দেশি-বিদেশী মাছ। আর দুই খামারে প্রতিদিন গড়ে তার খরচ হচ্ছে প্রায় ছয় হাজার টাকা। যার বেশির ভাগই তিনি পাচ্ছেন ডিম বিক্রির অর্থে।

২০১৯ সালে স্বল্প পরিসরে একটি মাত্র পুকুরে মাছ চাষের মাধ্যমে উদ্যোক্তা হওয়ার স্বপ্ন দেখেন দৈনিক ভোরের ডাকের স্টাফ রিপোর্টার ইমরুল কাওছার ইমন। দুই বছর মাছ চাষে সফল হওয়ার পর তিনি পরিকল্পনা করেন ‘খাকি ক্যাম্পেবেল’ জাতের হাঁস পালনের। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে তিনি করোনা মহামারির মাঝামাঝি সময়ে গড়ে তোলেন একটি হাঁসের খামার। পাশাপাশি ডিম বিক্রির ‍‍আয়ে ৪ একর জমিতে তিনটি বিশাল পুকুরে পরিকল্পিতভাবে চাষ করছেন বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। চার মাস পর পর মাছ বিক্রি থেকে তার আয় হচ্ছে প্রায় পাঁচ লক্ষাধিক টাকা। এছাড়া দৈনিক ৬-৭শ সংগৃহিত ডিম বিক্রির টাকায় সব খরচ বাদেও তার মাসিক আয় হচ্ছে লক্ষাধিক টাকা।

ছোট বেলা থেকেই ইমরুল কাওছার ইমনের মন টানতো কৃষিতে। ভিন্ন বিষয়ে পড়ালেখা শেষ করেও কৃষিভিত্তিক কিছু একটা করার স্বপ্ন ছিল তার। ঢাকায় চারটি ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের মালিক এই তরুণ উত্যোক্তা। তবে তার একটা গল্প আছে। হঠাৎ বৈশ্বিক করোনা মহামারিতে তার চারটি প্রতিষ্ঠান যখন অন্ধকারে; ঠিক তখনই কৃষিতে সফলতা এসেছে তার। এই খামারই এখন তার ব্যবসায়ীক ভারসাম্য রক্ষা ও ঠিকে থাকার অবলম্বন।
বাণিজ্যিকভাবে হাঁস ও মাছ চাষের পাশাপাশি ইমরুল কাওছার ইমন ২০১৫ সালে ঢাকার গুলিস্থানে নিজের জমানো টাকা দিয়ে একটি ছোট্ট শার্ট তৈরির কারখানা শুরু করেন। প্রথম দিকে মাত্র তিন জন কর্মচারী নিয়ে এই কারখানা শুরু হলেও বর্তমানে ৫০ জনের বেশি লোকের কর্মসংস্থান সৃষ্টি হয়েছে তার এই কারখানায়। পাশাপাশি তিনি শান্তিনগরে একটি ট্রাভেল এজেন্সিও প্রতিষ্ঠা করেন। তাছাড়া কয়েক বছরের ব্যবসার লাভের টাকায় বেশ কয়েকটি মাইক্রোবাস কিনে রাজধানীতে উবারেও চালান তিনি।

একই সঙ্গে নিজের বুদ্ধিমত্তাকে কাজে লাগিয়ে ইমন দেশের নামকরা অনেক প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে গড়ে তোলেন সুসম্পর্ক। এই সুবাদে এসব প্রতিষ্ঠানের বিভিন্ন কার্যক্রম ও ব্যবসায়ীক পণ্য প্রসার ঘটাতে ‘ক্রিকেট ব্র্যান্ডিং’ এর কাজ শুরু করেন। দেশের বিভিন্ন ক্লাব ভিত্তিক টুর্ণামেন্টসহ বাংলাদেশ জাতীয় দলের খেলোয়ারদের জার্সি ও গ্যালারিতে ব্র্যান্ডিংয়ের (বিজ্ঞাপন) কাজ করেও সফলতা পেয়েছেন তিনি।

তবে হতাশার কথা চলতি বছরের মার্চে এসে তার জীবনের সব হিসেব এলোমেলো হয়ে যায়। বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রকোপে ক্ষতি শুরু হতে থাকে একের পর এক ব্যবসায়। লকডাউনে গার্মেন্ট-কারখানা বন্ধ। উবারের গাড়ির চাকাও ঘোরেনি। সারা বিশ্বে বিমান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ায় ট্রাভেল এজেন্সির ব্যবসা ও ক্রিকেট ব্যান্ডিংও বন্ধ হয়ে যায়।

ঠিক তখনই ইমরুল কাওছার ইমন উপলব্ধি করতে পারেন; কয়েক বছরের চেষ্টার ফল করোনার এক ধাক্কায় স্থবির হয়ে গেল। এখন কী হবে? কীভাবে আবারও ব্যবসা দাড় করবেন। নতুন করে আবার কোথা থেকে শুরু করবেন ব্যবসা। মহা চিন্তা ও হতাশার মাঝে তাকে আশার আলো দেখিয়ে গ্রামে কৃষি ভিত্তিক কিছু করার পরামর্শ দেন তার সহধর্মিনী।

পরবর্তীতে সমন্বিতভাবে হাঁস ও মাছ চাষের পরিকল্পনা করেন ইমন। কিন্তু পড়ালেখা তো করেছেন ভিন্ন বিষয়ে। কৃষিতে সফলতা আসবে কীভাবে? এমন চিন্তার মাঝে হঠাৎ মাথায় বুদ্ধি আসে গুগল ও ইউটউব। সেখানে ভিডিও দেখে ও খামারিদের কাছে পরামর্শ নিয়ে ‘হামিদা ডাক এন্ড ফিস ফার্ম’ গড়ে তোলেন তিনি। আর তার এই খামার দেখভাল করেন তার ছোট ভাই নাহিদ আনছারী। দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ুয়া নাহিদ কলেজ বন্ধের পুরোটা সময়ই দিচ্ছেন এই খামারে।

স্থানীয়রা জানায়, ইমরুল কাওছার ইমনের ফার্মে বর্তমানে চার-পাঁচ জন শ্রমিক রয়েছে। একটি পুকুরে এক পাশে চাষ করছেন মনোসেক্স তেলাপিয়া ও আরেক পাশে চাষ হচ্ছে থাই জাতের পাংগাস। তার পাশে পানির উপরে বাঁশ ও টিন দিয়ে মাচা বানিয়ে হাঁসের খামার করেছেন। এছাড়া আরেকটি পুকুরে চাষ হচ্ছে ভিয়েতনামী কৈ, হাইব্রিড সিং, বিদেশি মৃগেল, কালিবাউশ, মিরকার্প ও সরপুটি। অপরটিতে চাষ হচ্ছে শুধুই দেশীয় জাতের মাছ। এর সবগুলোই বাণিজ্যিকভাবে চাষ হচ্ছে এই খামারে।

ইমরুল কাওছার ইমনের বাড়ি গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের পশ্চিম খামার দশলিয়া গ্রামে। বাড়ির পাশে নিজস্ব জমিসহ কয়েক বিঘা জমি বর্গা নিয়ে মাছ চাষ ও হাঁসের খামার করেছেন তিনি। খামারে এক হাজার হাঁসের মধ্যে প্রতিদিন তিনি ডিম সংগ্রহ করছেন ৭-৮শ। এই ডিম বিক্রির টাকায় হাঁস ও মাছের দৈনিক ছয় হাজার টাকার খাদ্যসহ শ্রমিকদের বেতন দিয়েও মাসে তার আয় হচ্ছে প্রায় লক্ষাধিক টাকা।

এই উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়ে স্থানীয় সংবাদকর্মী শাহিন মিয়া বলেন, ‘ইমন ঢাকায় সাংবাদিকতা করলেও এলাকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থান নিয়ে চিন্তা ভাবনা করেন। মূলত বেকারদের কর্মমূখী করার চিন্তা থেকেই তার এই হাঁস ও মাছের খামার করা। ইতিমধ্যে তার খামারে সফলতা দেখে আশেপাশে প্রায় ১০-১৫টি নতুন খামার সৃষ্টি হয়েছে।’

ইমরুল কাওছার ইমনের গড়ে তোলা খামার দেখে উদ্বুদ্ধ হয়ে নিজেও খামার তৈরির পরিকল্পনা করছেন নলডাঙ্গা ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সংরক্ষিত সদস্য লিপি বেগম। তিনি নিউজবাংলাকে বলেন, ‘ইমন ভাইয়ের দেখাদেখি অন্যরা খামার দেয়ার চেষ্টা করতিছে। অনেকে খামার দেখতে এসেও বুদ্ধি নিয়ে খামার দিচ্ছে। আমিও চিন্তে-ভাবনা করতিছি; একটা হাঁসের খামার দেব।’

খামার দু’টি দেখভালের দায়িত্বে আছেন উদ্যোক্তা ইমরুল কাওছার ইমনের ছোট ভাই নাহিদ আনসারী। তিনি বলেন, ‘আমরা প্রথমত এই খামারটি তৈরি করেছি মূলত আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে। তাছাড়া এই খামার করে আমরা লাভবান হচ্ছি।’

এ বিষয়ে খামারি ইমরুল কাওছার ইমন বলেন, ‘করোনা মহামারিতে সব ব্যবসায় বিশাল ক্ষতির মুখে পড়ি। এরপর গ্রামে কিছু করার চিন্তা থেকেই খামারের পরিকল্পনা করি। বর্তমানে এই খামার থেকে ভাল একটা আয় পাচ্ছি।’

সম্প্রতি খামারটি পরিদর্শন করেন বাংলাদেশ কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও গাইবান্ধা-৩ আসনের সংসদ সদস্য উম্মে কুলসুম স্মৃতি। এ নিয়ে তিনি বলেন, ‘প্রজেক্টটি দেখে আমি অবিভূত। যু্বকরা যে পারে; এটা তার দৃষ্টান্ত উদাহরণ।’

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৫:২৮ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:১৩ অপরাহ্ণ
  • ১৬:০০ অপরাহ্ণ
  • ১৭:৪০ অপরাহ্ণ
  • ১৮:৫৬ অপরাহ্ণ
  • ৬:৪৩ পূর্বাহ্ণ
bdgaibandha.news©2020 All rights reserved
themesba-lates1749691102