বুধবার, ১৮ মে ২০২২, ০৯:০৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
গোবিন্দগঞ্জ থানা পুলিশ কর্তৃক ১৩ কেজি গাঁজা সহ ১জন আটক সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট গাইবান্ধা সরকারি কলেজ শাখার নবীন বরণে ছাত্রলীগ হামলাঃ বিবৃতি প্রদান শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিতঃ গাইবান্ধায় আনন্দ শোভাযাত্রা ও আলোচনা সভা গাইবান্ধার পলাশবাড়ীর মনোহরপুরে ঋনের-বোঝাঁ মাথায় নিয়ে বৃদ্ধার আত্মহত্যা আইএলএসটি গাইবান্ধার শিক্ষার্থীদের নবীন বরণ ও ওরিয়েন্টেশন সাদুল্লাপুরে তিন ইউপি’র ভোটগ্রহণ স্থগিত; কি হবে প্রতিফলন!  পুলিশের সহায়তায় ১৯ দিন পর আলিফ ফিরে পেল তার মা বাবা কে তেল সিন্ডিকেট না করতে ডিলারদের হুশিয়ারি: গাইবান্ধায় পেট্রোল অকটেন সংকট; ব্যাবসায়ীদের সাথে জেলা প্রশাসনের আলোচনা নীলফামারীতে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী ও প্রধান শিক্ষককে মারধরের চেষ্টা সাদুল্লাপুরে ভ্যান আটকিয়ে জব্দ ড্রেজার মেশিন নিয়ে পালিয়েছে বালু ব্যবসায়ী; অতঃপর উদ্ধার

গাইবান্ধার নলডাঙ্গায় ভুয়া কাজী সাজ্জাদ হোসেন কর্তৃক বিয়ে রেজিষ্ট্রীঃ নকল প্রদানে অনিহায় ভোগান্তি মানুষের

সঞ্জয় সাহাঃ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৬ জুন, ২০২১

গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গায় ভুয়া কাজী সাজ্জাদ হোসেন কর্তৃক বিয়ে রেজিষ্ট্রীর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বিয়ের পর নকল প্রদান না করায় ভোগান্তির শিকার হচ্ছে অভিভাবকরা। সাজ্জাদ হোসেন নলডাঙ্গা ইউনিয়নে ভুয়া কাজী ,আওয়ামীলীগের প্যাডে সিগনেচার জালিয়াতি, নিজেকে কৃষক লীগের নেতা এমন ভূয়া পরিচয় দিয়ে সরকারি,বে-সরকারি দপ্তর সহ জনপ্রতিনিধিদের কাছে দাফিয়ে বেড়ার অভিযোগ উঠেছে।

 

এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় -গাইবান্ধা জেলার সাদুল্লাপুর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়ন জামাতের আমির নাশকতা সহ বিভিন্ন মামলায় কারাভোগ করা আসামী মরহুম কাজী আব্দুল হালিম খন্দকারের ছেলে ভুয়া কাজী ও শিবির নেতা সাজ্জাত হোসেন সরকারি আইনের তোয়াক্কা না করে ভুয়া রেজিষ্ট্রী বই ব্যবহার করে মুসলিম বিয়ে ও তালাক রেজিষ্ট্রীর কাজ সম্পন্ন করছেন। বিয়ে রেজিষ্ট্রীর পর ছেলে-মেয়ে উভয়ের পরিবারে নকল প্রদান না করায় হয়রানির শিকার হচ্ছে তারা। শুধু তাই নয় এতে করে ঐ এলাকায় বাল্য বিয়ের প্রবনতা বেড়েই চলছে। এসব থেকে পরিত্রান পেতে তার শাস্তির দাবী জানিয়ে জেলা প্রশাসক, জেলা রেজিস্ট্রার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সহ সংশ্লিষ্ট উদ্ধর্তন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভুক্তভোগী ও সচেতন মহলরা।

 

গত বছর ৩০ মার্চ নলডাঙ্গা ইউনিয়নের সরকারি নিয়োগপ্রাপ্ত মুসলিম বিবাহ ও তালাক রেজিষ্ট্রীকারক (কাজী) মোঃ আব্দুল হালিম মারা গেলে পদটি শূন্য হয়। পরে উক্ত কাজীর ছেলে সাজ্জাদ হোসেন তার পিতার রেখে যাওয়া রেজিস্ট্রার বহি ও জাল রেজিস্ট্রার ভলিওম বহি তৈরি করে তার সহযোগী পশ্চিম শ্রীরামপুরের প্রয়াত আজিজুল হক মন্ডলের ছেলে নজরুল ইসলাম সহ নিজেকে কাজী পরিচয় দিয়ে অত্র ইউনিয়নে দীর্ঘদিন যাবত অবৈধভাবে বাল্য বিয়ে সহ বিয়ে রেজিষ্ট্রী করছে এবং এতে করে সরকারের রাজস্ব খাতের ব্যাপক ক্ষতি সহ জনসাধারণ প্রতারিত ও ভোগান্তির শিকার হচ্ছে।

এতেও ক্ষ্যান্ত নন ভূয়া কাজী সাজ্জাদ , আওয়ামী লীগের প্যাড ব্যবহার করে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সিগনেচার জাল করে নিজের নামে একটি প্রত্যয়ন তৈরী করার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে । শিবির নেতা সাজ্জাদ হোসেনের সিগনেচার জালিয়াতির ঘটনার প্রতিবাদে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক চলতি সালের গত গত ১৪ মার্চ ইং তারিখে একটি প্রতিবাদ লিপি প্রকাশ করে সাদুল্যাপুর- পলাশবাড়ি আসনের এমপি কে জানিয়েছেন।

এছাড়াও সাজ্জাদ নিজেকে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন কৃষকলীগের ওয়ার্ড ধর্মীয় সম্পাদক ভূয়া পরিচয় দিয়ে দাপিয়ে বেড়াচ্ছে সরকারি বে- সরকারি দপ্তর সহ জন প্রতিনিধিদের কাছে।

এ বিষয়ে বাংলাদেশ কৃষকলীগ নলডাঙ্গা ইউনিয়ন শাখার সভাপতি সোলাইমান বাদশাহ বলেন, সাজ্জাদ হোসেনকে আমরা শিবিরের ক্যাডার হিসেবে চিনি। সাজ্জাদের বাবা মরহুম আ: হালিম তিনি ইউনিয়ন জামাতের আমির ছিলেন। তার বড় ছেলে সাজ্জাদ ও ছোট ছেলে শামছুল হুদা দু-জনই বাবার সাথে সক্রিও ছিল।

সাজ্জাদের ছোট ভাই শিবিরের রোকন শামছুল হুদা নাশকতার মামলায় রংপুরে কারাভোগ করে ছিলেন। সুতরাং এমন দেশদ্রহী জামায়াত পরিবারের সন্তান শিবির নেতাকে আমরা নলডাঙ্গা ইউনিয়ন কৃষকলীগে অন্তরভূক্ত করতে পারি না। ইউনিয়ন কৃষক লীগের সাধারণ সম্পাদক অবিনাশ চন্দ্র মহন্ত বলেন, সাজ্জাদ নামের কোন সদস্য আমার ইউনিয়নের কোন কমিটিতে দেই নাই, দেখিও নাই। কৃষকলীগে অর্ন্তভূক্তীর জন্য আমার কাছে লোকজন নিয়ে এসেছিল সাজ্জাদ। কিন্তু আমি বলেছি, যেহেতু সে দেশদ্রোহী সংগঠন এর সাথে জড়িত তাই তাকে আমি আমার কমিটিতে নিতে পারি না।

শিবির নেতা সাজ্জাদের পরিবার সম্পর্কে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামীগের প্রবীণ নেতাদের সুত্রে জানা যায়, নলডাঙ্গায় জামায়াতে ইসলাম গঠনের মূল নায়ক ছিলেন সাজ্জাদ হোসেন এর নানা মরহুম মাও: বদিউজ্জামান । তিনি ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় নলডাঙ্গা ইউনিয়নে শান্তি কমিটি গঠন করেন এবং পাক হানাদার বাহিনীর ক্যাম্প করে স্বাধীনতার পক্ষের আকরাম হোসেন ,চুন্নী লাল মৈত্র, মুকুল লাল মৈত্র, মহির উদ্দিন,নছিরুল ইসলাম (নছু), নরেন্দ্রনাথ ঘোষ সহ মোট ৭ জনকে পাক হানাদার কর্তৃক সুন্দরগঞ্জের বদ্ধ ভূমিতে হত্যা করেন।
একই সময়ে সাজ্জাদের নানা নলডাঙ্গা বাজারস্ত মদন কুমার কর্মকার ও পাচ কড়ি কর্মকারের বাড়ি জোড় পূর্বক দখল করে দেশ স্বাধীনের আগ পর্য ন্ত পরিবার পরিজন সহ অবস্থান করেছিলেন।

ইতোমধ্যে স্বাধীনতা বিরোধী পরিবারের সন্তান শিবির নেতা সাজ্জাদ হোসেনের এসব অপকর্মের বিষয় প্রকাশ করে তার শাস্তির দাবীতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। সে সাথে জেলা প্রশাসক, জেলা রেজিস্ট্রার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা রেজিস্ট্রার, সাদুল্লাপুর অফিসার ইনচার্জ গনকে বিষয়টি অবগত করে এলাকাবাসীর গণস্বাক্ষরে চলতি সালের ১৮ জুন তাদের নিকট আবেদন জমা দেয়া হয়েছে। এছাড়াও চলতি সালের ৭ই মার্চ বিবাহ ও তালাক রেজিষ্ট্রীকারক পদে জামায়াত-শিবিরের সমর্থিত প্রার্থীদের নিয়োগ না দেয়ার প্রতিবাদ জানিয়ে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের দলীও কার্যালয়ে উপজেলা চেয়ারম্যান এর উপস্থিতিতে সাদুল্যাপুর- পলাশবাড়ী আসনের সংসদ সদস্য উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপিকে নলডাঙ্গা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর সকল নেতা কর্মীর সাক্ষরিত স্মারকলিপি প্রদান করেছেন ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ এর নেতারা।
উল্লেখ্য, শিবিরের সক্রিয় নেতা ভূয়া কাজী সাজ্জাদ হোসেন এর পিতা বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী নলডাঙ্গা ইউনিয়ন শাখার আমির ছিলেন । বিভিন্ন নাশকতা মামলায় হালিম খন্দকার কারাভোগ করে জামিনে থাকা অবস্থায় গত বছর মৃত্যু বরণ করেন।

 

বিডি গাইবান্ধা/

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫৫ পূর্বাহ্ণ
  • ১১:৫৮ পূর্বাহ্ণ
  • ১৬:৩২ অপরাহ্ণ
  • ১৮:৩৭ অপরাহ্ণ
  • ২০:০০ অপরাহ্ণ
  • ৫:১৬ পূর্বাহ্ণ
bdgaibandha.news©2020 All rights reserved
themesba-lates1749691102