মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৪:১৭ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
পলাশবাড়ীতে বৃক্ষ রোপন কর্মসূচীর উদ্বোধন করেন এ্যাড উম্মে কুলসুম স্মৃতি এমপি ফুলছড়ির কঞ্চিপাড়ার সাপ দিয়ে পাতা খেলা বিষয়ে জানতে ইউএনওর পত্র আদালতের নির্দেশে দাফনের ১৮ দিন পর কবর থেকে লাশ উত্তোলন চেয়ারম্যান শামসুল মাস্টার নিজগ্রামে চির নিদ্রায় শায়িত হলেন পলাশবাড়ী‌র হো‌সেনপুর ইউ‌নিয়‌নে ৪ মাসের ভি‌জি‌ডির চাল বিতরন কর্তৃপক্ষ যেন অন্ধঃ গাইবান্ধা শহরের পুরাতন জেল খানার সামনে রাতের আধারে ড্রেন নির্মান, ধ্বসে পড়ছে প্লাষ্টার হারিয়ে যাচ্ছে বাংলার জাতীয় খেলা হা-ডু-ডু পলাশবাড়ী পৌর মেয়রের ত্রান বিতরণ আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা; পলাশপাড়ায় মালিকানাধীন জমি দখল করে রাস্তা তৈরীর অভিযোগ সাদুল্লাপুরের কামারপাড়া ইউপি চেয়ারম্যান শামসুল আলম মাস্টার আর নেই

জুয়া এখন হাতের মুঠোয় মোবাইলে,টেলিভিশনের পর্দায়

ফারহান শেখ
  • প্রকাশের সময় : শনিবার, ২৯ মে, ২০২১

জুয়া এখন হাতের মুঠোয় গাইবান্ধা শহরের বিভিন্ন জায়গার আনাচে কানাচে মোবাইল এ্যাপের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ টাকার ক্রিকেট জুয়া চলছে নিঃস্ব হচ্ছে হাজার হাজার পরিবার।লক্ষ লক্ষ টাকার মালিক হচ্ছে কিছু বড় মাপের ক্রিকেট জুয়ারীর ডিলার।ডিজিটাল যুগের নিত্য অনুষঙ্গ স্মার্ট ফোন হচ্ছে জুয়ার প্রধান উপকরণ।বাজি ধরা হয় ওভার প্রতি বল প্রতি।একটা স্মার্ট ফোন আর নেট কানেকশন থাকলেই অনলাইন গেম নামক ফাঁদে পড়ে আপনি হয়ে যেতে পারেন একজন জুয়ারী।একটা ঘড়ের মধ্যে আটকে থেকে সর্বস্ব হারিয়ে যখন নিঃস্ব ও দেনাদার হয়ে পড়বেন তখন হুশ ফিরবে।
ততক্ষণে আপনার আর কিছুই করার থাকবে না।এমনই রঙ্গিন ফাঁদে পড়ে প্রতিদিন কোটি কোটি টাকা হারাচ্ছে অনলাইন জুয়ারীরা।সাম্প্রতিক সময়ে এমনই কিছু ঘটনা আমাদের অনুসন্ধানে বেরিয়ে এসেছে।গাইবান্ধা শহরের বিভিন্ন জায়গায় যেমন পুরাতন বাজার থেকে শুরু করে শহরের বিভিন্ন বাজার মার্কেটের ভিতর রেল স্টেশন ছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় খেলা হচ্ছে ,পনি যখনই যাবেন দেখবেন অনেক লোক মোবাইল হাতে নিয়ে একাগ্র মনে কাজ করছে।যে কোনও লোক ভাববে হয়তো বন্ধু বান্ধব একত্র হয়ে আড্ডা দিচ্ছে অথবা অন্য কোন কাজ করছে ,কিন্তু ঘটনা অন্য।
তাদের অনেকেই অনলাইনে ক্রিকেট জুয়া খেলছে আর বাকীরা তাদের খেলা দেখছে।পুলিশ আসছে দেখলেই জুয়ারীরা পালিয়ে যাচ্ছে।এই জুয়া ঘরে বসে খেলা যায়।এমন অনেক গেম আছে যেগুলো দিনরাত ২৪ ঘন্টা ঘরে বসে খেলা যায়।জুয়ায় আসক্তরা সকল সময়ে পাগলের মত টাকা জোগাড়ের ধান্দায় থাকে।জুয়ায় হারতে হারতে যখন আর টাকা থাকেনা তখন স্থাবর অস্থাবর সম্পদ বিক্রি করে টাকা আনতে হয়। এক সময় ধারকর্জ করে নিঃস্ব ও মান সন্মান খুইয়ে হয়ে যান সমাজের বোঝা।কিছু জুয়ারী সামাজিক অপরাধমূলক কাজে জড়িয়ে পড়ে।
মাদকের নেশার মত অনলাইন জুয়াতেও আপনাকে কৌশলে টেনে নিবে আপনার পরিচিতজন।কেউ বুঝে বা কেউ না বুঝে তাতে জড়িয়ে পড়ছেন।
স্মার্ট ফোন চালায় অথচ ফেসবুক চালায়না এমন একজনকেও খুজে পাওয়া যাবেনা।জুয়ার চক্র ফেসবুক ব্যবহার করে জুয়াতে অকৃষ্ট করছে।করোনাকালে বেশীরভাগ মানুষই নেট নির্ভর জীবনের প্রতি আকৃষ্ট হয়েছে। এ ছাড়া কোন বিকল্পও নাই।

এই ক্রিকেট জুয়ারির অধীন ডিলার হিসাবে যারা চিপস কেনাবেচা করে এদের কমিশন দেওয়া হয়।আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর এ বিষয়ে গভীর নজরদারি প্রয়োজন বলে বিশেষজ্ঞরা মতামত দিয়েছেন।গাইবান্ধায় শহরের এই রাঘব বোয়াল ক্রিকেট জুয়ারীদের তালিকা করে দূত আইনের আওতায় আনা হোক না হলে তরুন যুব সমাজ হুমকির মূখে পরে যাবে বলে মনে করেন গাইবান্ধা সচেতনবাসী।

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৪৬ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০৩ অপরাহ্ণ
  • ১৬:৪০ অপরাহ্ণ
  • ১৮:৫২ অপরাহ্ণ
  • ২০:১৮ অপরাহ্ণ
  • ৫:১১ পূর্বাহ্ণ
bdgaibandha.news©2020 All rights reserved
themesba-lates1749691102