শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ০১:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
ত্রাণ নয়, তিস্তা মহাপরিকল্পনার বাস্তবায়ন চায় লালমনিরহাট গৃহহীন শত শত পরিবার ভারতীয় নবজাগরণের প্রাণপুরুষ ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর এর ১৩১তম প্রয়াণ দিবসে আলোচনা পলাশবাড়ীতে বালুমহাল ও ভূমি ব্যবস্থাপনা আইন অমান্য করায় জরিমানা সাদুল্লাপুরে বসতবাড়িতে আগুনে পুড়ে পাঁচ লক্ষাধিক টাকার ক্ষতি লকডাউনেও থেমে নেই মানুষের ব্যস্ততা গাইবান্ধা সদর ইন্দারপাড় মোড়ে অসহায় মছিরনকে টিনের ঘর বিতরণ করলেন অংকুর ফাউন্ডেশন সাদুল্লাপুরে সেনাবাহিনীর উদ্যোগে খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ডিআইজি দেবদাস ভট্টাচার্য্য শুভেচ্ছাঃ রংপুর রেঞ্জ অফিস সহকারী পুলিশ সুপার হিসেবে শামীম হোসেন যোগদানঃ গাইবান্ধায় সচেতন হচ্ছে না মানুষঃ বিধি নিষেধ অমান্যে আস্থা সুইটস সহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা গাইবান্ধায় আওয়ামী স্বেচ্ছাসেবকলীগ ২৭ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালিতঃ পুস্পস্তবক অর্পন ও কেক কাটা অনুষ্ঠিত

এক পায়েই ভর করে সংসার চালাচ্ছেন বৃদ্ধ খিজির

পিয়ারুল ইসলাম, গাইবান্ধা
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ৩ মে, ২০২১

গাইবান্ধা সদর উপজেলার পা হারানো বৃদ্ধ খিজির উদ্দিন (৭০)। এক পা হারিয়ে বৃদ্ধ বয়সেই তাকে টানতে হচ্ছে সংসারের বোঝা। তবে এক পা না থাকলেও দমে যাননি তিনি। বাড়িতে বসেই বাঁশ দিয়ে তৈরি করছেন গৃহস্থলীর কাজে ব্যবহৃত বিভিন্ন উপকরণ।

তবে কুটির শিল্পের এসব উপকরণ বিক্রি করে কোনোমতে সংসার চললেও আজ অবধি নিজের জন্য একটি হুইল চেয়ার কিনতে পারেননি তিনি। স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা একাধিকবার হুইল চেয়ার দেয়ার আশ্বাস দিলেও কেউ কথা রাখেনি। তবে হুইল চেয়ার না থাকলেও চলাচলের ভরসা একমাত্র নড়েবড়ে ষ্ট্রেচারটি।

খিজির উদ্দিনের বাড়ি সদর উপজেলার লক্ষীপুর ইউনিয়নের মৌজা মালিবাড়ি বর্মতট গ্রামে। চার ছেলে দুই মেয়ে সবার বিয়ে হয়ে যাওয়ায় যে যার মত আলাদাভাবে করছেন জীবনযাপন। তাইও এ বয়সেও স্ত্রী রহিমা বেগমকে নিয়ে এক পায়েই টানতে হচ্ছে সংসারের বোঝা।

সরেজমিনে দেখা যায়, নিজ বাড়ির আঙিনায় বসে বাঁশের তৈরি গৃহস্থলীর কাজে ব্যবহৃত ডালা, কুলা বানাচ্ছেন তিনি। স্ত্রী রহিমা বেগম তাকে কাজে সহযোগিতা করছেন।

এ সময় তিনি বলেন, ‘বয়স অনেক হল। চোখেও দেখতে পারি না ঠিকমতো। কানেও কম শুনতে পাই।’

তিনি বলেন, ‘অনেক কষ্ট করে বাঁশ দিয়ে ডালা, কুলা বানাই। দিনের মধ্যে তিন-চারটার বেশি বানাতে পারি না। তা বিক্রি করে সংসার চলে না। খেয়ে না খেয়ে বাঁচি আছি এভাবে।’

পা হারালেন কীভাবে এমন প্রশ্নে খিজির উদ্দিন বলেন, ‘প্রায় ২০ বছর আগে ডান পায়ে একটা ছোট ফুসকুড়ি (টিউমার) উঠে। পরে ফুসকুড়ি ধীরে ধীরে বড় হয়ে ঘা হয়। গ্রাম্য ডাক্তারসহ হাসপাতালে চিকিৎসা করেও ভাল হয়নি। এক সময় ঘা হাটুর নিচে চলে গেলে ডাক্তারের পরামর্শে রংপুরে গিয়ে অপারেশন করে পা কেটে ফেলি। সেই থেকে বাড়িতেই বেশিরভাগ সময় কাটে।’

তিনি বলেন, ‘পা হারানোর আগে রাজমিস্ত্রির কাজ করতাম। তখন সংসারও ভাল চলতো। চার ছেলে ও দুই মেয়ের বিয়ে দিয়েছি রাজমিস্ত্রির কাজ করে। এখন নিজেই অসহায়। পা হারিয়ে বুঝেছি জীবনের বাস্তবতা।’

গত ১৫ বছরে একটা হুইল চেয়ারও কিনতে পারি নাই। চেয়ারম্যান মেম্বররা দিতে চায়! কিন্তু দেয় না বলেন খিজির উদ্দিন।

স্ত্রী রহিমা বেগম বলেন, ‘কষ্ট করে চলি বাবা। অভাবের শেষ নাই। হুইলচেয়ার কি দিয়ে কিনমো।’

এ বিষয়ে লক্ষীপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান বাদল বলেন, ‘এই মুর্হূতে ইউনিয়ন পরিষদের কোন বরাদ্দ নাই। তবে খোঁজ খবর নিয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে হুইলচেয়ারের জন্য আবেদন করব।’

 

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:০৪ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০৮ অপরাহ্ণ
  • ১৬:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ১৮:৪৯ অপরাহ্ণ
  • ২০:১১ অপরাহ্ণ
  • ৫:২৪ পূর্বাহ্ণ
bdgaibandha.news©2020 All rights reserved
themesba-lates1749691102