বুধবার, ২১ এপ্রিল ২০২১, ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
গাইবান্ধায় লাইসেন্সবিহীন ফার্মেসি ব্যবসা জমজমাটঃ নেই প্রশিক্ষিত ফার্মাসিস্ট? প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা সচেতন নাগরিকের!! ধান কাটতে গাইবান্ধার ৭৩ কৃষি শ্রমিক কুমিল্লা ও নন্দীগ্রামে পলাশবাড়ী হাসপাতালের জন্য প্রয়োজনীয় সংখ্যক ডাক্তার ও নার্স চাইলেন পৌর মেয়র জননেতা বিপ্লব গোবিন্দগঞ্জে পানির ট্যাঙ্কে পড়ে দুই সহোদরের মৃত্যু গাইবান্ধার স্কুলছাত্রী অপহরণের তিনদিন পর পলাশবাড়ী থেকে উদ্ধারঃ বাবলা মিয়া নামে একজন গ্রেফতার!! করনায় অসচেতন মানুষঃ মানছেনা স্বাস্থ্যবিধি ও লকডাউন; ট্রাফিক ও পুলিশের তদারকি!! করনায় বিপাকে নিম্ন আয়ের মানুষঃ গাইবান্ধা জেলা পুলিশের উদ্যোগে বগুড়ার হাওর এলাকায় কৃষি শ্রমিক প্রেরণ! গোবিন্দগঞ্জে প্রতারক স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর সংবাদ সম্মেলন গোবিন্দগঞ্জে আহত ট্রলি শ্রমিক জিল্লুরের চিকিৎসায় সাহায্যের আবেদন সরকারী পুকুর খননের সময় দেড়শ বছরের পুরাতন বিষ্ণুমূর্তি উদ্ধার

আধুনিকতার ছোয়ায় হারিয়ে যাচ্ছে জোড়া গরুর হাল

শফিকুল ইসলাম সাগর
  • প্রকাশের সময় : বুধবার, ২০ জানুয়ারী, ২০২১

কৃষি প্রধান দেশ বাংলাদেশ। কৃষির উপর নির্ভরশীল এ দেশের প্রায় ৮০ ভাগ মানুষ। ক্ষুধা মুক্ত, দারিদ্র মুক্ত, দেশ-জাতি গড়ার যাদের অবিরাম সংগ্রাম তারাই চাষা, তারাই মজুর। তাদেরই রক্তে ঘামে উর্বর এই বাংলাদেশ। যেখানে এক পাশে বলদ,এক পার্শ্বে মানুষ টানছে হাল, এখন সেখানে প্রযুক্তির বাংলাদেশ। চাষ হচ্ছে  ট্রাক্টরে। বাংলাদেশের এ অভূতপূর্ব উন্নয়নের মুলে রয়েছে কৃষি কারিগরেরা। যাদের বিপ্লবী চেতনায় বাংলাদেশ আজ বদলে গেছে, বদলে গেছে বিশ্বমানচিত্রে বাংলাদেশের মর্যাদা। বর্তমান সরকারের বিভিন্ন কৃষি বান্ধব কার্যক্রমের ফলে এখন ক্ষুধামুক্ত দারিদ্র মুক্ত উন্নয়নশীল বাংলাদেশ। এক সময়ের কৃষি কাজে কৃষকেরা কামারের তৈরি কাঠের লাঙ্গল, জোয়াল এবং বাঁশের মই ব্যবহার করে জমি চাষাবাদ করতেন। যুগের পর যুগ ধরে কৃষিকাজে ব্যবহৃত এসব স্বল্প মূল্যের কৃষি-যন্ত্রপাতি এবং জোড়া গরু দিয়ে হালচাষ করে ফসল ফলিয়ে জীবিকা নির্বাহ করে আসছেন কৃষকরা। দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে গ্রাম-বাংলার এই ঐতিহ্য জোড়া  গরুর হাল। কালের বির্বতনে বিজ্ঞানের ছোয়ায় নতুন নতুন আবিষ্কারের ফলে কৃষকদের জীবনে এসেছে নানারকম পরিবর্তন। আর সেই পরিবর্তনের ছোঁয়া লেগেছে কৃষিতেও। কৃষি নির্ভরশীল গাইবান্ধার সাদুল্লাপুর উপজেলা বিভিন্ন এলাকার কৃষকেরা তরি-তরকারির চাষাবাদ করে থাকেন প্রতিনিয়ত। অল্প  আয় ও স্বল্প  জমির মালিকরা সবজি চাষে আগ্রহ থাকলেও চাষাবাদে গরুর হাল হর-হামেসায় না পাওয়ায় এবং পাওয়ার টিলার ও যান্ত্রিক মেশিন দিয়ে চাষ করার সুযোগ না থাকায় সবজি চাষে আগ্রহ হারাচ্ছে কৃষক। অন্যদিকে আধুনিক প্রযুক্তি নির্ভরশীল চাষিরা প্রযুক্তি ব্যবহার করে তাদের চাষাবাদে আশানুরুপ ফল পাচ্ছে। কথা হয় ধাপেরহাট ইউনিয়নের কৃষক আ: ওয়াহেদ মিয়ার সাথে। তিনি বলেন, গরুর হাল না থাকায় আগের মত তরি-তরকারি চাষাবাদ করতে পারছি না। আজ থেকে ১০ বছর আগে তিনি খন্ড খন্ড উচু এক বিঘা জমিতে বিভিন্ন প্রকার তরি তরকারি চাষাবাদ করে বছরে প্রায় ৪০ হাজার টাকা লাভ করত। পাওয়ার টিলার দিয়ে খন্ড খন্ড জমি চাষ কষ্টকর এবং টিলার মালিকরা জমি চাষ করতে না আসায় সময় মত তরি তরকারি আবাদ করা সম্ভব হচ্ছে না। সে কারনে তিনি তরি-তরকারি চাষাবাদ ছেড়ে দিয়েছেন। গরুর হালের মালিক আব্দুল হামিদ জানান, গরুসহ প্রতিটি উপকরনের দাম এখন অনেক বেশি। সে কারনে গরুর হাল এখন পোষায় না। শুধু মাত্র মৌসুমি তরি-তরকারি এবং বীজতলা চাষাবাদের জন্য গরুর হাল দরকার হয়।

তাই তো আর দেখা মেলেনা উপজেলার গ্রাম অঞ্চলে রোজ সকালে কৃষকের হাতে জোড়া গরুর দড়ি আর কাঁধে লাঙল-জোয়াল, মই,  নিয়ে কৃষকদের মাঠে যেতে। দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে গ্রাম-বাংলার হাজার বছরের ঐতিহ্য জোড়া গরু, লাঙল, জোয়াল দিয়ে হাল চাষ। কৃষিপ্রধান এদেশের হাজার বছরের ঐতিহ্যের সঙ্গে জড়িয়ে রয়েছে জোড়া গরু, লাঙল, জোয়াল ও মই। বাংলাদেশে বিজ্ঞানের ছোয়ায় নতুন নতুন আবিষ্কারের সঙ্গে সঙ্গে গরুর হাল চাষের পরিবর্তনে বর্তমানে পাওয়ার টিলার অথবা  ট্রাক্টর দিয়ে জমি চাষ করা হয়।  ইতোপূর্বে দেখা যেত, ভোরবেলা কৃষকেরা লাঙ্গল, জোয়াল আর গরু নিয়ে যেত জমিতে হাল চাষের জন্য কিন্তু যেখানে বিজ্ঞানের নতুনত্ব আবিষ্কারই বলে দিচ্ছে দিন বদলের ইঙ্গিত। গাইছে পালাবদলের গান, ঠিক তখনই গরুর লাঙল দিয়ে চাষাবাদ নেই বললেই চলে। কেনইবা হবে না! এ যুগে মানুষের অসীম চাহিদা আর এখন জমি চাষের প্রয়োজন হলেই অল্প সময়ের মধ্যেই পাওয়ার টিলারসহ আধুনিক যন্ত্রপাতি দিয়ে হচ্ছে জমি চাষাবাদ। গরু দিয়ে হাল চাষ বিলুপ্ত হওয়ায় তো কৃষকেরা এখন বর্তমানে অন্য পেশায় ঝুঁকছেন আবার কেউবা কর্ম না পেয়ে রয়েছেন বেকার। কালক্রমে দিন দিন হারিয়ে যাচ্ছে গরু, লাঙ্গল, জোয়াল দিয়ে জমিতে হাল চাষ।

কৃষি অফিস সূত্রে জানা যায়: বর্তমান সরকারের কৃষি ক্ষেত্রে উদার নীতির কারনে কৃষি উৎপাদনের বিভিন্ন সূচকে বাংলাদেশ আজ ইর্ষনীয় সাফল্যের দাবিদার। সবজি উৎপাদনে বিশ্বে বাংলাদেশ ৩য়,মাছ ও চাল উৎপাদনে ৪র্থ, স্বাধীনতার পর থেকে উৎপাদন বেড়েছে পূর্বের তুলনায় ধান ৩ গুন, গম ২ গুন, সবজি ৫ গুন, ভূট্টা ১০গুন। পূর্বে যেখানে হেক্টর প্রতি ২টন চাউল উৎপাদন হতো, এখন সেখানে ৪ টনের বেশি চাউল উৎপাদন হয়। ধান হিসাব করলে প্রতি হেক্টরে ৬ টনের বেশি উৎপন্ন হয়। মাংস উৎপাদনে আজ স্বয়ংসম্পূর্ন বাংলাদেশ।

সংবাদ টি ভালো লাগলে শেয়ার করুন

এ বিভাগের আরো সংবাদ

আজকের নামাজের সময়সুচী

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:১৭ পূর্বাহ্ণ
  • ১২:০১ অপরাহ্ণ
  • ১৬:৩০ অপরাহ্ণ
  • ১৮:২৬ অপরাহ্ণ
  • ১৯:৪৩ অপরাহ্ণ
  • ৫:৩৩ পূর্বাহ্ণ
bdgaibandha.news©2020 All rights reserved
themesba-lates1749691102